বয়স অনুযায়ী ঘুমানোর পরিমাণ

বয়স অনুযায়ী ঘুমানোর পরিমাণ

সঠিক ঘুম শরীরের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ। পর্যাপ্ত ঘুম শরীর এবং মনকে চাঙ্গা রাখে; পরের দিনের কাজের জন্য শরীর প্রস্তুত করে। আবার যারা দীর্ঘক্ষণ ঘুমায় তাদের পক্ষে সেই ঘুম খুব বেশি স্বাস্থ্যকর হয় না। কম ঘুমও শরীরের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ।

ঘুমের মাত্রা বয়সের সাথে পরিবর্তিত হয়। এই জাতীয় শিশুরা প্রাপ্তবয়স্ক এবং প্রাপ্তবয়স্কদের চেয়ে কিছুটা বেশি ঘুমায়। একজন ব্যক্তির প্রতিদিন কত ঘুম দরকার তা বয়সের জন্য গুরুত্বপূর্ণ; জাতীয় ঘুম ফাউন্ডেশন এ বিষয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

ঘুমের বিষয়ে তাদের পরামর্শটি তুলে ধরা হয়েছিল।

  • শূন্য থেকে ৩ মাস বয়সী শিশুদের ১৪ থেকে ১৭ ঘণ্টাঘুমানো প্রয়োজন।
  • ৪ মাস থেকে ১১ মাস বয়সী শিশুদের জন্য ১২ থেকে ১৫ ঘণ্টাঘুম দরকার হয়।
  • ১ থেকে ২ বছর বয়সী শিশুদেরদরকার হয় ১১ থেকে ১৪ ঘণ্টার ঘুম।
  • ৩ থেকে ৫ বছর বয়সীদের জন্য ১০ থেকে ১৩ ঘণ্টা।
  • ৬ থেকে ১৩বছর বয়সী শিশুদের রাতে অন্তত ৯-১১ ঘণ্টা ঘুমানো প্রয়োজন। তবে নিয়মিত ৭-৮ ঘণ্টা ঠিকঠাক ঘুমাতে পারলেও ওরা নিজেকে চালিয়ে নিতে পারে।
  • ৮-১০ ঘণ্টা ঘুম প্রয়োজন ১৪থেকে ১৭ বছর বয়সীদের।
  • ১৮ থেকে ২৫বছর বয়সী মানুষের রাতে ৭-৯ ঘণ্টা ঘুমানো প্রয়োজন।
  • ২৬ থেকে ৬৪বছর বয়সী মানুষের রাতে ৭-৯ ঘণ্টা ঘুমানো প্রয়োজন।
  • ৬৫ বছরের চেয়ে বেশি বয়সীদের জন্য ঘুমানো প্রয়োজন ৭-৮ ঘণ্টা।
Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *