মাউসির শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার নির্দেশনা

মাউসির শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার নির্দেশনা

করোনভাইরাসের কারণে দীর্ঘ এক বছর পর, স্বাস্থ্য বিধি অনুসরণ করে আগামী ৩০ মার্চ সারাদেশে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলতে যাচ্ছে। মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর (মাউশি) শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের খুলার প্রস্তুতি শুরু করার নির্দেশনা দিয়েছে।

গত মঙ্গলবার (১৬ মার্চ) মাউসির একটি অফিস আদেশে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধানসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে এ নির্দেশনা দেওয়া হয়।

অফিস আদেশে বলা হয়েছে যে ৩০ শে মার্চ, সকল সরকারী-বেসরকারী মাধ্যমিক এবং উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে শিক্ষামূলক কার্যক্রম শুরু করার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের নির্দেশ দেওয়া হলো। স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর এবং শিক্ষা প্রকৌশল অধিদফতরকে ৩০ শে মার্চের আগে যে কোনও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ভবনে মেরামত করার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

অফিস আদেশে আরও বলা হয়, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার পর এসএসসি শিক্ষার্থীদের ৬০ কর্মদিবস এবং এইচএসসি শিক্ষার্থীদের জন্য ৮০ কর্মদিবস পাঠদান করে সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে পরীক্ষা নেয়ার জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর, আন্তশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটি এবং মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডগুলোকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এর আগে শুক্রবার (১২ মার্চ) শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দিপু মনি জানান, করোনার সংক্রমণ বাড়তে থাকলে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের খোলার তারিখ পেছাতেপারে। তিনি বলেন, আমরা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছি। শিক্ষার্থী, শিক্ষক, অভিভাবকদের নিরাপত্তার আগে। করোনার সংক্রমণ বাড়তে থাকলে, শিক্ষপ্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্তে বিলম্ব হতে পারে।

গত ২৭ ফেব্রুয়ারি, শিক্ষামন্ত্রী আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় অবহিত করেছিলেন,  আগামী ৩০ মার্চ দেশের সব স্কুল-কলেজ পুনরায় চালু করা হবে। একই দিনে তিনি বলেছিলেন, দেশের সকল পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাসরুমের পাঠদান ২৪মে থেকে শুরু হবে এবং ১৭ মে হল খুলবে।এর আগে  সমস্ত ধরণের পাঠদান ও পরীক্ষা বন্ধ থাকবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সমস্ত আবাসিক শিক্ষার্থী, শিক্ষক এবং কর্মীরা ১৭ মে এর আগে করোনার টিকা প্রদান করা হবে। এছাড়াও, বিসিএস পরীক্ষার আবেদন ও পরীক্ষার তারিখ বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্বোধন অনুযায়ী নির্ধারিত হবে।

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *